মাহমুদউল্লাহর চোখে-মুখে মাঠে ফেরার উচ্ছ্বাস

স্পোর্টস রিপোর্ট :

ব্যাটে-বলে নিজেদের ঝালাইয়ের আগে ফুটবল নিয়ে মেতে ওঠাটা নিয়মিত দৃশ্য বাংলাদেশ দলের। সব সময়ই দেখা যায় এমনটা, আজও তার ব্যত্যয় ঘটেনি। দীর্ঘ সময় পর দলীয় অনুশীলন। সবার মাঝে উচ্ছ্বাসের কমতি ছিল না। এ যেন করোনাকে হারিয়ে মাঠে ফেরা।

করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ সময় মাঠেই আসতে পারেননি ক্রিকেটাররা। জুনের শেষ সপ্তায় একক অনুশীলন শুরু হয়ে এতদিন চলছিল। তবে স্থগিত হওয়া শ্রীলঙ্কা সিরিজ আলোর মুখ দেখায় দলগত অনুশীলনের জন্য ২৭ ক্রিকেটারের দল ঘোষণা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

এই ২৭ ক্রিকেটারকে বায়ো বাবল প্রটোকলে রেখে আজ থেকে শুরু হয়েছে দলীয় অনুশীলন। প্রথম দিনের অনুশীলন শেষে দলে থাকা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ জানালেন, দলগত অনুশীলনে ফিরতে পেরে স্বস্তির কথা।

‘অনেকদিন পর সবাই মিলে মিরপুরে অনুশীলন করলাম। খুব ভালো লাগছে। এতদিন তো ব্যক্তিগতভাবে ফিটনেস আর স্কিলের কাজ করেছি। এবার গ্রুপের সঙ্গেও শুরু হলো। এটা খুব ভালো ব্যাপার। ’

দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন কোচরাও। এতদিন একা একা অনুশীলন করলেও সব রকম সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে আজ থেকে।

‘যেহেতু আমরা ব্যক্তিগত সেশনগুলো শুরু করেছি ৪-৫ সপ্তাহ হলো। সেখানে অনেকগুলো কাজ ছিল। ব্যাটিং কোচের সঙ্গে কথা বলে বোলিং মেশিনে কাজ করেছি। এখন টিম-মেটদের সঙ্গে কাজ করা হচ্ছে। সতীর্থরাও বেশ উৎফুল্ল, আমিও উৎফুল্ল। কারণ দিনশেষে এটা দলীয় খেলা। সবার সঙ্গে মিলে যদি কাজ করা যায় তাহলে সেটা খুব কার্যকর হয়।’

লক-ডাউনের সময় ঘরে থাকাকালীন সময়েও ফিটনেস নিয়ে কাজ করার কথা জানিয়েছেন এই অল-রাউন্ডার। টেস্ট দলের চুক্তিতে নেই মাহমুদউল্লাহ। তবে ২৭ সদস্যের দলে নিজেকে দেখে মাহমুদউল্লাহ চাইতেই পারেন টেস্ট দলে ফিরতে।

‘একটা জিনিসে বেশ উপকার হয়েছে আমার। ফিটনেসে বেশ উন্নতি করেছি। ফিজিও আর ট্রেনারের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ ছিল। এখন স্কিলের কাজ করছি। ফিটনেস এবং স্কিল দুইটা মিলিয়েই ভাল পারফর্ম করতে হবে

Loading...
Share via
Copy link
Powered by Social Snap