জ্বর-সর্দি-কাশিতে কড়া এন্টিবায়োটিক নয়, মোকাবিলা করুন ঘরোয়া উপায়ে

অনামিকা রায়
ঋতু পরিবর্তনের এই সময়টা আমাদের শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক! ঠান্ডা-জ্বর, সর্দি-কাশি, বুকে কফ জমা লেগেই থাকে। ডাক্তারের দ্বারস্থ হলেই কড়া কড়া অ্যান্টিবায়োটিক! ফল ? শরীর ক্লান্ত, খিদে নেই, কাজ করার এনার্জি শেষ! কাজেই, প্রথমেই অ্যান্টিবায়োটিক না খেয়ে ঘরোয়া উপায়ে জ্বর, সর্দি-কাশির মোকাবিলা করুন-

পেঁয়াজ-

সমপরিমাণে পেঁয়াজের রস, লেবুর রস, মধু এবং পানি একসঙ্গে মিশিয়ে ফুটিয়ে নিন। এই মিশ্রণটা হালকা ঠাণ্ডা করে দিনে ৩-৪বার খান। এছাড়া কাঁচা পেঁয়াজও চিবিয়ে খেতে পারেন। সর্দি-কাশি পালাবে!

হলুদ-

হলুদে রয়েছে কারকুমিন যা বুক থেকে কফ, শ্লেষ্মা দূর করে বুকের ব্যথা কমায়। এর অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান গলা ব্যথা, বুকের ব্যথা দূর করে। এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে এক চিমটি হলুদের গুঁড়ো মিশিয়ে প্রতিদিন কুলকুচি করুন। আরাম পাবেন। এছাড়া এক গ্লাস দুধে অর্ধেক চা চামচ হলুদগুঁড়ো মিশিয়ে ফোটান । ২ চা চামচ মধু ও সামান্য গোলমরিচের গুঁড়ো মিশিয়ে মিশ্রণটি দিনে ২-৩বার খান। উপকার পাবেন।

লেবু এবং মধু-

লেবু জলে ১ চা-চামচ মধু মিশিয়ে খান। মধু শ্বাসযন্ত্রের ব্যাকটিরিয়া ধ্বংস করে, বুক থেকে কফ দূর করে গলা পরিষ্কার রাখে।

গরম পানির ভাপ-

ফুটন্ত গরম পানিতে মেন্থল মিশিয়ে নিন। এবার মাথার উপর টাওয়েল চাপা দিয়ে বড় দম নিয়ে গরম পানির ভাপ নিন। দিনে ২ বার অন্তত ১০ মিনিট করে এরকম করুন। বুকে জমে থাকা কফ খুব সহজেই বেরিয়ে আসবে।

লবণ পানি-

বুকে জমা কফ দূর করতে, দিনে দু-তিনবার উষ্ণ গরম লবণ পানি দিয়ে গার্গল করুন। আরাম পাবেন। লবণ শ্বাসযন্ত্র থেকে কফ দূর করতে সাহায্য করে।

বিবার্তা
Loading...
Share via
Copy link
Powered by Social Snap