চীন ও তাইওয়ানের কূটনীতিকদের মধ্যে ব্যাপক মারামারি

ডেস্ক রিপোর্ট : চীনা কূটনীতিকদের সঙ্গে তাইওয়ানি কূটনীতিকদের হাতাহাতি ও মারামারি হয়েছে।

এতে একজন তাইওয়ানি কূটনীতিক আহত হয়েছেন। তাকে হাসপাতালেও ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনাটি চলতি মাসের ৮ তারিখে প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপদেশ ফিজিতে ঘটলেও সোমবার তাইওয়ানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানায়। খবর রয়টার্সের।

মন্ত্রণালয় কর্মকর্তারা বলেছেন, ফিজিতে তাদের একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে তাণ্ডব চালান দুই চীনা কূটনীতিক। তবে তাইওয়ানের এ দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে বেইজিং।

ভূ-রাজনৈতিক দ্বন্দ্বে ফের অশান্ত হয়ে উঠছে চীন ও তাইওয়ান সম্পর্ক। একই সময় চীন দাবি করছে, তাইওয়ান তাদের বিচ্ছিন্ন প্রদেশ। ভবিষ্যতে প্রদেশটি আবারও তাদের অংশ হবে।
তাইওয়ানে স্বতন্ত্র রাষ্ট্রের দাবি জোরদার হয়ে উঠছে। সাম্প্রতিক সময়ে নিজেদের প্রতিরক্ষা আরও শক্তিশালী করার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, গত ৮ অক্টোবর সন্ধ্যায় তাইওয়ানের জাতীয় দিবস উপলক্ষে একটি সংবর্ধনার আয়োজন করেছিল ফিজিতে নিযুক্ত তাইওয়ানের প্রতিনিধির দফতর। সেখানে ওই মারামারি হয়।

সেখানে কারা যোগ দিচ্ছেন সে বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ ও ছবি তোলার জন্য চীনের দুই কূটনীতিক জোর করে অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশের চেষ্টা করেন।

তখন তাইওয়ানি কূটনীতিকরা তাদের বাধা দেন। এতে দু’পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি, মারামারি শুরু হয়ে যায়। পরে মাথায় আঘাত পান তাইওয়ানি কূটনীতিক।

তাইওয়ানের এ বক্তব্য নাকচ করে দিয়েছে চীন। ফিজির চীন দূতাবাস পুলিশকে এ ঘটনার তদন্ত করতে বলেছে।

চীন দূতাবাসের বক্তব্য, ‘ওই সন্ধ্যায় ফিজিতে থাকা তাইপের বাণিজ্য দফতর চীনের দূতাবাস কর্মীদের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক আচরণ করে।

চীনের কর্মীরা তাদের সরকারি দায়িত্ব পালনে সেখানে গিয়ে অনুষ্ঠানস্থলের বাইরে সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত এলাকায় অবস্থান নিয়েছিল, কিন্তু তারপরও তাদের একজনকে আহত ও তার ক্ষতিসাধন করা হয়।’

Loading...
Share via
Copy link
Powered by Social Snap