“চীনের উহানের ল্যাবেই তৈরি হয় করোনা ভাইরাস”- লন্ডনে তথ্য প্রকাশ চীনা বিজ্ঞানীর

অনলাইন ডেস্ক:
গত বছরের ডিসেম্বরে মহামারী করোনা প্রথম ধরা পড়ে চীনের উহানে। সেই থেকে যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশ দাবি করছিল যে উহানের ল্যাব থেকেই বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে করোনা। তবে চীন এই তথ্য কখনো স্বীকার করেনি। এবার উহানের ল্যাব থেকেই করোনা ছড়ানোর দাবিকে জোরালো করলেন উহানের ল্যাবের এক ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ান।ব্রিটিশ টেলিভিশনের একটি টকশোতে হাজির হয়ে তিনি দাবি করেন, চীনের ল্যাবেই তৈরি করা হয়েছে করোনাভাইরাস। এটি মানুষের তৈরি বলে তার কাছে শতভাগ প্রমাণ রয়েছে। তিনি তা প্রকাশ করবেন বলেও জানিয়েছেন।

চীন দাবি করেছে, উহানের স্থানীয় একটি বাজার থেকে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু সেকথা অস্বীকার করে লি দাবি করেছেন, উহানের সি ফুড মার্কেট থেকে এই ভাইরাসের উৎপত্তি হয়নি। তার কথায়, এই ভাইরাস চীনের ল্যাবেই তৈরি করা হয়েছে। এই ভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্স মানুষের আঙুলের মুদ্রণের মতো। এর দ্বারাও প্রমাণিত হয় এটি মানবসৃষ্ট ভাইরাস। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মিরর-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হংকংয়ে জন্ম নেওয়া ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ান পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। বছরের শুরুতে তাকে চীন হত্যা করতে চেয়েছিল বলে ভয়ে যুক্তরাষ্ট্র পালান তিনি।

লি মেং ইয়ান বলেন, আমি এই প্রমাণ ব্যবহার করে মানুষকে জানিয়ে দেব কেন চীনের ল্যাবে এই ভাইরাস তৈরি হয়েছে এবং কেন তারা এটি তৈরি করেছে। জীববিজ্ঞানের জ্ঞান না থাকলেও যে কেউ তা পড়তে পারবে এবং নিজেই তা যাচাই করতে পারবে।

এর আগে তিনি দাবি করেছেন, করোনা সংক্রমণ নিয়ে মিথ্যা বলেছে চীন। সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার কথা অনেক আগে জানতে পেরেও রোগটির বিষয়ে সঠিক তথ্য গোপন রাখা হয়।

ইয়ান জানান, চীনের পূর্বাঞ্চলে গত বছরের শেষ দিকে নিউমোনিয়ার মতো এই রোগ প্রথমদিকে গবেষণাকারীদের একজন ছিলেন তিনি। কিন্তু যখন রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকে তখন তাকে নীরব ও সতর্ক থাকতে বলা হয়। তার সুপারভাইজার তাকে বলেন, আমরা সমস্যায় পড়ব এবং গুম হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

Share via
Copy link
Powered by Social Snap