আল জাজিরার প্রতিবেদন: বার্গম্যানসহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলা ফেরত

নিউজ ডেস্ক:

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরায় প্রকাশিত ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার’স মেন’ শীর্ষক প্রতিবেদনটির জন্য রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানসহ চার জনের বিরুদ্ধে মামলাটি গ্রহণ না করে ফেরত দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শহিদুল ইসলামের আদালত এ আদেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর হেমায়েত উদ্দিন খান হিরণ বলেন, মামলাটি আদালত ফেরত করে দিয়েছেন। আদালত বলেছেন, ১৯৬ ধারার বিধান মতে রাষ্ট্রবিরোধী অপরাধে অভিযোগ আমলে নেওয়ার ক্ষেত্রে সরকার বা সরকার কর্তৃক এ বিষয়ে বিশেষভাবে ক্ষমতাপ্রাপ্ত যে কোনও অফিসারের আদেশ দায়েরকৃত নালিশ ব্যতীত কোনও আদালত অভিযোগ আমলে নিতে পারবেন না। বর্তমানে মামলাটি দায়ের করার ক্ষেত্রে নালিশকারীকে সরকার কোনও ধরনের অথরিটি দেয়নি। তাই মামলাটি গ্রহণ না করে নালিশকারীর কাছে ফেরত দেওয়া হলো।

এর আগে আজ মঙ্গলবার সকালে আদালতের বিচারক শহিদুল ইসলাম জানতে চান, বিদেশি নাগরিকের বিরুদ্ধে এই দেশে মামলা চলতে পারে কি না? জবাবে আইনজীবী আব্দুল খালেক মিয়া বলেন, আমরা দণ্ডবিধির ৩ ও ৪ ধারা ব্যাখ্যা করে বলেছি, এই মামলা বিদেশি নাগরিকের বিরুদ্ধে চলতে পারে।

দণ্ডবিধির ৩ ধারার কথা উল্লেখ করে ওই আইনজীবী জানান, বাংলাদেশের আইনবলে বিচারযোগ্য যে কোনও অপরাধের বিচার দেশের বাইরে হলেও তা দেশীয় আইনে করা যাবে। আর ৪ ধারায় বলা হয়েছে, বিদেশে থাকা অবস্থায় বাংলাদেশের নাগরিককেও এই আইনের আওতায় বিচার করা যাবে। এছাড়া ফৌজদারি কার্যবিধির ১৯০ ধারা অনুযায়ী ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক মামলা আমলে নেওয়ার ক্ষমতার বিষয়টি ব্যাখ্যা করেন তিনি।

গত বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট মশিউর মালেক বাদী হয়ে মামলাটি করেন। ওই দিন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমামের আদালত বাদীর জবানবন্দি রের্কড করেন এবং পরে আদেশের জন্য আজকের দিন ধার্য করেন।

ডেভিড বার্গম্যান ছাড়া মামলার অপর আসামিরা হলেন- হাঙ্গেরি প্রবাসী শায়ের জুলকারনাইন সামি, ইন্ডিপেন্ডেন্ট ওয়ার্ল্ড রিপোর্ট এর সম্পাদক তাসনিম খলিল ও আল জাজিরা টেলিভিশনের ডিরেক্টর জেনারেল মোস্তফা স্যোউয়াগ।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে একই উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ সরকার ও রাষ্ট্রের সুনাম হানি করে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে অপপ্রচার চালিয়েছে। তারা রাষ্ট্রদ্রোহিতা মূলক অপরাধে লিপ্ত আছে। তারা যৌথভাবে তাদের অজ্ঞাতনামা সহযোগীদের নিয়ে ভুয়া মিথ্যা তথ্য দিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করে গত ১ ফেব্রুয়ারি রাতে ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার্স মেন (All The Prime Minister’s Men)’ নামে বাংলাদেশ রাষ্ট্র ও সরকার বিরোধী একটি প্রতিবেদন প্রচার করে এবং ওই প্রতিবেদন ইউটিউবেও ব্যাপকভাবে প্রচার করে। যা পরের দিন বিভিন্ন মুদ্রিত ও অনলাইন পত্রিকায়ও প্রচারিত হয়েছে।

– বাংলা ট্রিবিউন

Loading...
Share via
Copy link
Powered by Social Snap