আল্লামা শফী হত্যা প্ররোচনা মামলায় অভিযুক্ত যে ৪৩ জন

নিউজ ডেস্ক:

হেফাজত ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা আমীর আল্লামা শফীর মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছে পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

সোমবার পিবিআই হেফাজতের বর্তমান আমীর আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ও যুগ্ম মহাসচিব নাসির উদ্দিন মুনিরসহ ৪৩ জনকে দায়ী করে চট্টগ্রাম জুডিশিয়াল তৃতীয় জজ আদালতের কাছে তদন্ত প্রতিবেদনে দাখিল করে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ৪৩ জনের মধ্যে ৩১ জন এজাহারভুক্ত। তারা হলেন- মাওলানা নাছির উদ্দিন মুনির, মাওলানা মীর ইদরিস, হাবিব উল্লাহ আজাদী, আহসান উল্লাহ, আজিজুল হক ইসলামাবাদী, জাকারিয়া নোমান ফয়েজী, আব্দুল মতিন, মো. শহীদুল্লাহ, রিজওয়ান আরমান, হাসানুজ্জামান, মো. এনামুল হাসান ফারুকী, মীর সাজেদ, জাফর আহমদ, মীর জিয়াউদ্দিন, মাওলানা আহম্মদ, মাওলানা মাহমুদ, আসাদুল্লাহ, জুবাইর মাহমুদ, হাফেজ জুনায়েদ আহমেদ, আনোয়ার শাহ, ছাদেক জামিল কামাল, কামরুল ইসলাম কাসেমি, মো. হাসান, ওবায়েদুল্লা ওবায়েদ, জুবাইর, মাওলানা মোহাম্মদ, আমিনুল হক, সোহেল চৌধুরী, মবিনুল হক, নাইমুল ইসলাম খান ও হাফেজ সায়েম উল্লাহ।

এদিকে পিবিআই’র তদন্তে নতুন করে যে ১২ জনের নাম যুক্ত হলো তারা হলেন- জুনায়েদ বাবুনগরী, মাওলানা শফিউল আলম, শিব্বির আহমেদ, আবু সাঈদ, হোসাইন আহমদ, তাওহীদ, এরফান, মামুন, আমিনুল, মাসুদুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম এবং নুর মোহাম্মদ।

প্রসঙ্গত, হাটহাজারী মাদ্রাসার সাবেক মহাপরিচালক আল্লামা আহমদ শফী গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় আজগর আলী হসপিটালের চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মৃত্যুর আগের দিন মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে তিনি মহাপরিচালকের পদ ছাড়েন।

পরে গত ১৭ ডিসেম্বর আহমদ শফীর শ্যালক মইন উদ্দিন চট্টগ্রামের আদালতে মামলা করেন। মামলায় ৩৬ জনকে আসামি করা হয়েছিল। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্ত করে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার আদেশ দিয়েছিলেন।

Loading...
error: Content is protected !!
Share via
Copy link
Powered by Social Snap